অনলাইনে নারীদের আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হয়ে উঠার জন্য কিছু পরামর্শ

7882614208_79076cf92e_bআপনি কি একজন নারী? আপনি কি উদ্যোক্তা হতে আগ্রহী? আপনি অনলাইনে কাজ করে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার উপায় খুঁজছেন? যদি তাই হয় তাহলে এ লেখাটি আপনারই জন্য। সামান্য কিছু ধারণা আপনাকে অনলাইন বাণিজ্য সম্পর্কে আগ্রহী করে তুলতে পারে।

আসুন জেনে নেওয়া যাক অনলাইনে নারীদের স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য কিছু পরামর্শ।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং
এটি নতুন কিছু নয়। তবে বর্তমানে এটি অনলাইনে আয়ের অন্যতম বড় একটি মাধ্যম। তাছাড়া অনলাইন ব্যবসা আরম্ভ করার জন্য সবচেয়ে ভাল এবং সবচেয়ে সহজ উপায় হল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।

ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট
যদি আপনি সৃজনশীল কাজ করতে ভালবাসেন তাহলে আপনি এই সেক্টরে অনায়াসে কাজ চালিয়ে যেতে পারেন। এটা আপনার জন্য নিঃসন্দেহে আনন্দদায়ক একটি কাজ হিসেবে স্বীকৃতি পেতে পারে।

গ্রাফিক ডিজাইন
আপনার অবিশ্বাস্য গ্রাফিক ডিজাইনের দক্ষতা আছে? তবে কেন আপনি আপনার এই দক্ষতার প্রয়োগ করছেন না? আপনি চাইলেই গ্রাফিক ডিজাইনের মাধ্যমে অনলাইনে কাজের জগতে আপনার ভালো একটি অবস্থান বানাতে পারেন। একটু চেষ্টা করলেই অনলাইনে একটি গ্রাফিক ডিজাইন ফার্ম খুলতে পারেন যা আপনার স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন সফল করতে পারে।

ওয়েব ডিজাইন
গ্রাফিক ডিজাইনের মতো অনলাইনে কাজের আরো একটি উৎস হল ওয়েব ডিজাইন। যে সেক্টরে কাজের মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি স্বাবলম্বী হতে পারেন।

অনলাইন বিডিং ষ্টোর
আপনি কি বিডিং করতে ভালবাসেন? আপনি কি একজন বিডিং জাদুকর? যদি তাই হয় তবে নিঃসন্দেহে আপনি অনলাইন বিডিং সেক্টরে সাফল্য অর্জন করতে পারেন,শুধু দরকার আপনার একটু চেষ্টা আর নিজের বুদ্ধিকে কাজে লাগানোর ইচ্ছা।

অনলাইন গহনার ব্যবসা
নারীদের জন্য অনলাইন ভিত্তিক অনলাইন ব্যবসাগুলোর মধ্যে এটি একটি অন্যতম আইডিয়া। আপনি চাইলে খুব সহজেই একটি অনলাইন কাস্টম জুয়েলারি ষ্টোর করতে পারেন যা আপনাকে আর্থিক স্বাবলম্বিতার সাথে সাথে দেবে কাজ করার আলাদা একটি এনার্জি আর আপনি নিঃসন্দেহে এই কাজটি করতে আনন্দ পাবেন।

অনলাইনে প্রসাধনী সামগ্রীর ক্রয়-বিক্রয়
একজন নারী উদ্যোক্তার জন্য অনলাইন কসমেটিকস ষ্টোর একটি ভালো আইডিয়া হিসেবে মূল্যায়ন হতে পারে।

অনলাইনে করুন উপহার সামগ্রীর ব্যবসা
আপনি যদি কারু ও চারুশিল্প সম্পর্কে আগ্রহী হন অথবা আপনার এ কাজে দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি একটি কাস্টম গিফটস সাইট খুলতে পারেন। যেখানে আপনি আপনার মনের সৃজনশীল আইডিয়া গুলো কাজে লাগিয়ে সহজেই সাফল্য লাভ করতে পারেন।

হয়ে উঠুন অনলাইন ভ্রমণ নির্দেশনা প্রদানকারী
বাংলাদেশে প্রচুর দর্শনীয় স্থান রয়েছে। কিন্তু সেগুলো সম্পর্কে বাইরের দেশের পর্যটক থেকে শুরু করে আমাদের দেশে ভ্রমণপিপাসু মানুষ তেমন কিছুই জানেন না। সেক্ষেত্রে আপনি অনলাইনে এ তথ্যগুলো নিয়ে একটি ট্রাভেল গাইড বা ভ্রমণ পরামর্শ ভিত্তিক যদি তাই হয় তাহলে অনলাইনে আপনি ব্যক্তিগত সফর-গাইড হিসেবে একটি অবদান রাখতে পারেন।

অনলাইন ইন্টেরিওর ডেকরেটর
একজন নারীর জন্য অনলাইন কাজের মাধ্যম হিসেবে অনলাইন ইন্টেরিওর ডেকরেটর একটি অতুলনীয় আইডিয়া বলে আমি নিজে মনে করি। সৃষ্টিগতভাবেই মেয়েরা ঘর অথবা যেকোনো কিছু সাজাতে বা গোছাতে ভালবাসে। আর এই ভালবাসার কাজটিকে যদি তারা পেশা হিসেবে নেয় তাহলে সেক্ষেত্রে তারা সব থেকে বেশী সাফল্য পাবে আশা করি।

আপনি আপনার সারাদিনের সময়ের ভেতর থেকে অল্পকিছু সময় যদি অনলাইন জগতে নিজেকে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার পিছনে অতিবাহিত করেন তাহলে আমি নিশ্চিত যে ঘর সংসার সামলানোর সাথে সাথে নিজেকে একজন সফল নারী উদ্যোক্তা হিসেবে প্রমাণ করতে পারবেন

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে

8 Replies to “অনলাইনে নারীদের আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হয়ে উঠার জন্য কিছু পরামর্শ”

  1. Ami akta site a dollar clik kore…kinto dollar uthate parcina plz bolben kivabe dollar uthano jai? abar Noebux name akta site a clik korchi, sekhan thakeo dollar uthate parchina..plz bolenna?

    1. আপনাকে ধন্যবাদ। আসলে প্রত্যেকটি সাইট কিভাবে টাকা পরিশোধ করে তা ভিন্ন ভিন্ন হয়। ক্লিক থেকে আয় করা বিষয়টি আমাদের কাছে নৈতিক ভাবে উপার্জন মনে হয় না।তাই এই বিষয়ে পরামর্শ দেয়ার মতো পূর্ব অভিজ্ঞতা আমাদের নাই।

  2. রুমানা আপনি অনেক ভালো লিখেছেন, আমার মতে একজন নারীর অনলাইনে সাবলম্বি হবার সেরা উপায় হচ্ছে Affliliate Marketing.

  3. সেক্টরগুলো ঠিকাছে।।। কিন্তু অনলাইনে কিভাবে প্রচার করতে পারি ?? সেটা ত বললেন না??

    1. অনলাইনে প্রচারের মাধ্যমগুলোকে আমরা দুইভাবে বর্ণনা করতে পারি
      একটি হচ্ছে ফ্রি মাধ্যম আর অপরটি হচ্ছে পেইড মাধ্যম।
      অনলাইনে প্রচারের ফ্রি মাধ্যমগুলো হচ্ছে Blogging,Forum PostingArticle Marketing,Social Media Marketing ইত্যাদি।
      পেইড মাধ্যমগুলো হচ্ছে Pay per Click Advertising,Banner Advertising,Facebook Advertising, Sponsored Blogging ইত্যাদি।

    2. @Kaosarun Nesa- কিভাবে অন লাইনে প্রচার করবেন সেইটা জানার আগে আপনাকে ঠিক করতে হবে আপনি কি প্রচার করতে চাচ্ছেন।
      কারন । কারন সব প্রোডাক্ট/মার্কেট সেগমেন্টে সব প্রচার মাধ্যমে ঠিক মত কাজ করবে না। উদাহরন- যদি আপনার প্রোডাক্ট হয় প্রশাধনি পণ্য তাহলে কিন্তু খুব সহজেই বলে দেয়া যায় আপনার জন্য সবচে ভালো প্রচার মাধ্যম হবে সেই প্রোডাক্ট এর রিভিউ ব্লগিং ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। আর ভুল হবে তখন-যখন আপনি আপনারা প্রশাধনি প্রোডাক্ট এর Banner Advertising দিবেন কোন ইলেক্ট্রনিক্স প্রোডাক্ট এর ব্লগে। 🙂

      1. গ্রেট! 🙂
        আপনি অনেক ভালভাবে ব্যাপারটা বলেছেন।
        আমাদের সাথেই থাকুন 🙂

Leave a Reply