পিঠের ব্যথা দূর করার কার্যকরী ১০ টি উপায়

BackPainপিঠের ব্যথা এখনকার সময়ে বেশ বড় একটি সমস্যা। যিনি ভুগেছেন, তিনি জানেন এর যন্ত্রণা কতটুকু।  কাজ করে শান্তি নেই,   শান্তিমত ঘুমানো যায় না, চলাফেরা করতে গেলে ব্যথা লাগে। তবে এটা থেকে মুক্তি পাবারও আছে উপায়।


১.  ব্যায়াম করা : 
আপনার পিঠের ব্যথা এবং আপনি ভাবছেন যে ব্যায়াম করা কমিয়ে  দিয়ে শুধু বিশ্রাম নিলেই ব্যথা ভালো হয়ে যাবে। ২-৩ দিন বিশ্রাম নিলে হয়ত কাজে দিবে, কিন্তু তারপর এটা আর সাহায্য করবেনা। তাই বিশেষজ্ঞরা  প্রতিনিয়ত শারীরিক পরিশ্রম করতে বলে থাকেন যেটা ব্যথা দূর করতে কার্যকরী।

২. ওজন পরিমাপ করুন :  অতিরিক্ত ওজন , বিশেষ করে শরীরের মধ্যভাগের বাড়তি ওজন পিঠের ব্যথার জন্য দায়ী। কাজেই ওজন কমাতে হবে এবং সেটা হতে হবে আপনার স্বাভাবিক  ওজন থেকেও বেশ কয়েক কেজি কম।

৩. ধূমপান ছেড়ে দিন :  ধূমপান   মেরুদণ্ডের স্বাভাবিক   রক্ত-চলাচলে ব্যঘাত ঘটায়। যারা ধূমপান করেন, তাদের পিঠের ব্যথা অনেক বেশি হয়ে থাকে। আজই ধূমপান ত্যাগ করুন।

৪. ডাক্তারের পরামর্শমত শুবেন : আপনার পিঠের ব্যথা হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে, যেনতেন ভাবে বিছানায় শোয়া যাবে না। ডাক্তাররা বলে থাকেন যে, শোয়ার সময় হাঁটুর নিচে একটা বালিশ এবং পিঠের নিছে একটা বালিশ দিয়ে শুতে, আর তাহলে ব্যথা কিছুটা কমবে।

৫. আসনে নজর দিন : যে সিটে বা চেয়ারে আপনি বসে কাজ করবেন, লক্ষ্য রাখা উচিৎ যে সেটা আরামদায়ক কিনা। যদি শক্ত হয়, তাহলে পরিহার করুন। যদি দীর্ঘসময় নিয়ে  বসে কাজ করতে হয়, তাহলে ৩০ মিনিট পর পর একটু হেঁটে নিন, একটানা বসে কাজ করবেন না।

৬. অধিক ভার বহনে বিরত থাকুন : পিঠের ব্যথার অন্যতম কারণ হল অতিরিক্ত ভার বহন করা। এটা একদমই করবেন না।

৭. হাই-হিল পরিহার করুন : হ্যাঁ, এটি আপনার জন্য কষ্ট হলেও আপনাকে পিঠের ব্যথা থেকে অনেকাংশে মুক্তি দিবে। ১ ইঞ্চি এর বেশি কোন হাই- হিল ব্যবহার করবেন না।

৮. আঁটসাঁট কাপড় পরিহার করুন : অতিরিক্ত আঁটসাঁট কাপড়ে পিঠের ব্যথা হয়, চলতে অসুবিধা থেকে একটা সময় এই ব্যথার উৎপত্তি । কাজেই আঁটসাঁট জিন্স বা অন্য যেকোনো জামা না পড়ে ঢিলে-ঢালা পোশাক বেছে নেয়াই ভালো হবে আপনার জন্য।

৯.  মানিব্যাগ এর ভার  কমান : আপনি যদি অনেক সময় ধরে বসে কাজ করতে থাকেন আর মানিব্যাগ যদি ভারি হয়,  এটা পিঠের ব্যথা বাড়াবে। যারা গাড়ি চালান অনেক সময় ধরে, তারা পিছনের পকেটে মানিব্যাগ রাখবেন না।

১০. উপযুক্ত হাতব্যাগ এবং ব্রিফকেস ব্যবহার করুন : আপনার কাছে যেই ব্যাগ ব্যবহার করা স্বাচ্ছন্দ্য মনে হয়, সেটাই ব্যবহার করা উচিৎ।

 

উপরে উল্লিখিত পরামর্শ গুলো অনুসরণ করুন, আপনার পিঠের  ব্যথা অনেকটাই কমে যাবে।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি।  জীবন ঘনিষ্ঠ বিভিন্ন বিষয়ে অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইস বুক, টুইটার , গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।

Leave a Reply