অন্যকে কষ্ট না দিয়েই নিজের মতামত প্রকাশ করুন দৃঢ়ভাবে

Assertiveness Skillsপ্রয়োজনীয় সামাজিক দক্ষতার অভাবে আমরা কোন কোন সময় নিজস্ব মতামত ও চাওয়া দৃঢ়তার সাথে প্রতিষ্ঠা করতে পারি না। জড়তা বা লজ্জাবোধের জন্য বা অপর পক্ষকে অসন্তুষ্ট করার ভয়ে নিজের মতামত বা ন্যায়সঙ্গত দেনা পাওনার বিষয় যথাযথভাবে প্রকাশ করতে পারি না। অথবা অনেক সময় রেগেও যাই। সেজন্য মানসিক অশান্তিও দেখা দেয়।

যেমন কাল আপনার পরীক্ষা, আপনি অনেক উদ্বিগ্ন । বন্ধুরা বলছে, “চল মুভি দেখি”। যদি আপনি তাদেরকে খুশি রাখতে চান তাহলে আপনি তাদের সাথে যাবেন । অথচ আপনি তা চাচ্ছেন না মনে মনে, আবার তাদেরকে দুঃখও দিতে চাচ্ছেন না, কিন্তু গিয়ে আসার পর আপনার খুবই মন খারাপ হচ্ছে।

আরেকটা উপায় হলো আপনি খুব রেগে গেলেন আর বন্ধুর সাথে গেলেন না মুভি দেখতে । বন্ধুকে বকাঝকা করলেন। এতেও মন খারাপ হল। সবচেয়ে ভালো উপায় হলো Assertiveness উপায় অবলম্বন করা। আপনি যদি এভাবে আপনার কথাটি বলেন যে তাদের সাথে গেলে আপনার ভালো লাগত কিন্তু পরীক্ষার চিন্তায় আপনি যেতে পারছেন না। তাদের কেও দুঃখ দেয়া হলো না আবার আপনিও দুঃখ পেলেন না।

এবার জানি Assertiveness skills কি এবং এটা কিভাবে অর্জন করা যায় ?

Assertiveness হলো অন্যের অধিকার খর্ব না করে নিজের অনুভূতি, মতামত, বিশ্বাস,এবং চাহিদা সরাসরি , খোলাখুলি ও সৎভাবে প্রকাশের ক্ষমতা। Assertiveness যোগাযোগ দক্ষতা, আত্মবিশ্বাস ও আত্মমর্যাদা বাড়ায়, অন্যের কাছে সম্মান অর্জনে সাহায্য করে এবং সিদ্ধান্ত তৈরির ক্ষমতায় উন্নতি করে।
১) নিজের অনুভূতি, মতামত এবং প্রয়োজন সরাসরি, সৎভাবে এবং খোলাখুলি বলুন। সরাসরি ও দৃঢ়ভাবে ন্যায়সঙ্গত অনুরোধ করুন। সরাসরি ও সৎভাবে আপনার লক্ষ্য অথবা পরিকল্পনা বলুন।
২) আপনার বন্ধু, সহপাঠী, পরিবার বা অন্যরা আপনার উপর যেন কোন কিছু চাপিয়ে না দেয়। বরং এভাবে বলুন বা তাদের আপনার নিজস্ব চিন্তা, চাওয়া ও অনুভূতিটা জানান।
৩) সৎ থাকুন যখন কেউ আপনার প্রশংসা করছেন এবং আপনি কার প্রশংসা করছেন। প্রশংসা কখনো প্রত্যাখ্যান করবেন না এবং অবশ্যই মনে করবেন না যে আপনাকে প্রশংসা ফেরত দিতে হবে।
৪) অযৌক্তিক অনুরোধকে “না” বলা শিখুন। “না” শব্দটি ব্যাবহার করুন এবং কেন না বলছেন তা বুঝিয়ে বলুন। কোন অজুহাত বা ক্ষমা না চেয়ে বা রেগে না গিয়ে অন্যের দৃষ্টিকোণ থেকে ভেবে বলুন। তাহলে তিনি বুঝবেন যে আপনি তার অনুরোধ শুনেছেন এবং বুঝেছেন।
৫)” কেন ” প্রশ্নটি এড়িয়ে চলুন। “কেন ” প্রশ্নে শ্রোতা নিজেকে প্রতিরক্ষার(Defence) সুযোগ পায়। কেন না বলে কি জন্য , কিভাবে, কখন প্রশ্নগুলো ব্যাবহার করুন।
৬) আপনার পরিবার, বন্ধু ও অন্যান্য ব্যাক্তিদের অধিকার সম্পর্কে জানুন ও শ্রদ্ধা করুন। যেমন আপনি যদি তাদের প্রতি হতাশ হন তবে তাদের দিকে আঙ্গুল না দেখিয়ে , “তুমি” উদ্ধৃতি না করে “আমি” এবং “আমরা” উক্তি ব্যবহার করে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করুন।
৭) যখন কথা বলছেন তখন গলার স্বর ও শারীরিক ভঙ্গির যথাযথ ব্যবহার করুন। চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলুন। অন্য ব্যাক্তি থেকে স্বস্তিদায়ক দূরত্বে দাঁড়ান বা বসুন।

“Never retreat. Never explain. Get it done and let them howl.”
Benjamin Jowett

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।

Leave a Reply