যেভাবে নিজেকে একজন মনোযোগী শ্রোতা হিসেবে গড়ে তুলবেন

How to Be a Good Listenerপ্রায় সবার জীবনেই এই সময়টি আসে, যখন এমন কাউকে প্রয়োজন হয় যাকে সব কথা বলে হালকা হওয়া যায়। আর সেই সময়টিতে একজন মনযোগী শ্রোতাই (good listener) সবাই কামনা করেন। নিজেকে একজন ভাল শ্রোতা হিসেবে গড়ে তুললে অসংখ্য সুবিধার পাশাপাশি একটি বিশেষ সুবিধা পাওয়া যায় , আর তা হলো মানুষের বিশ্বাস অর্জন। একজন ভাল শ্রোতা হওয়ার জন্য (being a good listener) কিছু বিষয় জানা প্রয়োজন যা আপনাদের জন্য তুলে ধরেছি এই লেখাটিতে।

যে কাজগুলো করবেনঃ

১. চোখে চোখ রাখুন (make eye contact):

কারো সাথে কথা বলা বা শোনার সময় চোখে চোখ রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এতে করে অপরজন বুঝতে পারবেন যে আপনি মন দিয়ে তার কথা শুনছেন। শুধুমাত্র তখনই তিনি নিজের সব কথা আপনাকে খুলে বলবেন। তবে লক্ষ্য রাখবেন , এসময় যেন চোখে বিরক্তি বা অন্যমনস্ক দৃষ্টি ফুটে না ওঠে বরং আগ্রহী বা জিজ্ঞাসু দৃষ্টি ফুটিয়ে তুলুন।

২. মনে রাখার চেষ্টা করুন (remember what you’ve been told):

একজন ভাল শ্রোতা (a good listener) হবার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে পূর্বে যা শুনেছেন তা মনে রাখা। সবার সব কথা মনে রাখা কখনই সম্ভব নয়, তবে চেষ্টা করুন অন্তত গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলো মনে রাখার। হতে পারে তা কোন ব্যক্তি বা জায়গার নাম, সমস্যার কারণ ইত্যাদি।

৩. প্রশ্ন করুন (ask meaningful questions):

কারো কথা শোনার ফাঁকে ফাঁকে প্রশ্ন করুন। লক্ষ্য রাখবেন প্রশ্নটি যেন প্রাসঙ্গিক হয়। তাহলে বক্তা বুঝতে পারবেন আপনি মন দিয়ে তার কথাগুলো শুনছেন এবং বোঝার চেষ্টা করছেন।

যে কাজগুলো করা যাবে নাঃ

১. কথার মাঝখানে নিজে কিছু বলবেন না (don’t interrupt):

কেউ কথা শেষ করার আগেই নিজে কথা বলবেন না। এতে করে বক্তা বিরক্ত হবেন, হয়তো প্রসঙ্গটি নিয়ে কথা বলাই থামিয়ে দিবেন। তাই প্রথমে বক্তাকে কথা শেষ করার সুযোগ দিন এর পর আপনারটি বলুন।

২. জেরা করবেন না (don’t interrogate):

উপরের ৩ নাম্বার পয়েন্টে প্রশ্ন করার কথা বলেছি। তবে এই প্রশ্ন যেন জেরা করার পর্যায়ে চলে না যায়। এমন প্রশ্ন করুন যা শুনে মনে হবে আপনি বিষয়টি নিয়ে আগ্রহী তাই আরও জানতে চাচ্ছেন।

৩. বিষয় পরিবর্তনের চেষ্টা করবেন না (don’t try to change the subject):

যদি কোন বিষয়ে আপনার কথা বলতে অস্বস্তি লাগে বা স্বাছন্দবোধ না করেন তবে তা সরাসরি জানান। আলোচনার মাঝপথে বিষয় পরিবর্তনের চেষ্টা করবেন না। এতে করে যিনি কথা বলছেন তার মনে আপনার সম্পর্কে বিরক্তি তৈরি হবে।

৪. তাৎক্ষণিক কোন সমাধানের চেষ্টা করবেন না (don’t try to help immediately):

ভাল শ্রোতা হওয়ার (be a good listene) অন্যতম শর্ত এটি। প্রথমে মন দিয়ে কথাগুলো শুনুন। এর পর বিষয়টি নিয়ে ভেবে সমাধান খুঁজে বের করুন। যদি আপনি সমস্যা সমাধানে খুব দক্ষও হয়ে থাকেন তারপরেও কিছুটা সময় নিন। কারণ এমনও হতে পারে যে, বক্তা আসলে কোন সমাধান চাইছেন না, তিনি শুধু চাইছেন তার কথাগুলো কারো সাথে ভাগাভাগি করতে। এছাড়া যদি কোন কথা শোনার সময়েই আপনি তার সমাধান নিয়ে ভাবতে থাকেন তাহলে অনেকগুলো কথাই কান এড়িয়ে যাবে।

এ ধরণের আরও লেখা পড়ুনঃ

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।

Leave a Reply