জেনে নিন জীবনের খারাপ সময়গুলো কাটিয়ে ওঠার মূলমন্ত্র

bad timeজীবনে খারাপ সময় যখন তখন আসতে পারে। আর সেই খারাপ সময় মোকাবেলা করার জন্য আমাদের সবার সর্বদা প্রস্তুত থাকা দরকার। ভালো সময় পার করার জন্য আপনার চারপাশে মানুষের অভাব হবে না, কিন্তু যখন খারাপ সময় আসে তখন পাশে থাকার মানুষের অভাব দেখা যায় সবচেয়ে বেশি। তাই খারাপ সময় সাহসের সাথে অতিক্রম করার সহায়ক ব্যাপারগুলো সবার জেনে রাখা উত্তম।

আসুন এই ফিচারে আমরা দেখি কি কি বিষয় আপনার চরম খারাপ মুহূর্তে সাহায্য করবে।

  • খারাপ সময় না আসলে ভালোর গুরুত্ব কখনোই অনুভব করা যায় না। আপনি কখনোই প্রকৃত সুখী হতে পারবেন না যদি না আপনি কখনো অসুখী হয়ে থাকেন। আলোর যথার্থ মূল্যায়ন তখনই হয় যখন চারদিক ঘন অমানিশা ছেয়ে যায়। একইভাবে আপনি আপনার খারাপ মুহূর্তগুলো ভালো কিছুর আশায় অতিবাহিত করতে শিখুন।
  • সবসময় আপনার জীবনের ভালো ঘটনাগুলো গণনা করুন। আর সাথে জীবনের পাওয়া সাফল্যগুলোও স্মরণ করতে ভুলবেন না। আমাদের জীবন স্থির কোন বস্তু বা পদার্থ নয়, বরং এটি চলমান। আর সেকারণেই জীবনে এতো বদল এতো পরিবর্তন। আর এসবটা মনেপ্রানে বিশ্বাস করে আপনার খারাপ মুহূর্তে সবটা খারাপ নিয়ে না ভেবে ভালো কোন প্রাপ্তি নিয়েও ভাবুন। দেখবেন খারাপ মুহূর্ত আপনাকে কম কষ্ট দিচ্ছে।
  • জীবনের সব কিছু থেকে শিক্ষা গ্রহণের চেষ্টা করুন। খারাপ মুহূর্তে একদম ভেঙ্গে না পড়ে বরং এই অবস্থার সঠিক ব্যবহার করুন। এই অবস্থার মধ্যে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা জ্ঞান আহরণ করুন। দেখবেন আপনি আর হতাশাবোধ করছেন না। হতাশার স্থলে আপনার মনে কৌতূহল কাজ করছে।
  • আপনার জীবনের খারাপ মুহূর্তগুলো্র সুযোগ গ্রহণ করুন, সবকিছু নতুন করে ঢেলে সাজাবার। যেসব সিদ্ধান্ত নিতে এতকাল ভয়ে পিছিয়ে ছিলেন সেইসব কাজের জন্য এখন আপনি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারেন। এই সময় আপনার মাঝে ভয় কম কাজ করবে আর কিছু জয় করার আকাংক্ষা বেশি জেগে উঠবে। আর সেকারণেই খারাপ মুহূর্ত আমাদের জন্য অপার সম্ভাবনার দ্বার খুলে দেয়।
  • ভুলেও কখনো নিজেকে পরিস্থিতির শিকার বলে ভাববেন না। একবার যদি মনে ঢুকে যায় আপনি পরিস্থিতির শিকার তাহলে আপনার নিজের সব রকম সৃষ্টিশীল চিন্তাভাবনা স্থবির হয়ে যাবে। আপনি নিজের ভাগ্যকে নিয়তির হাতে তুলে দেওয়ার অজুহাত পেয়ে যাবেন। বরং ভাবুন আপনার একটি সুন্দর জীবন আছে সাথে সুন্দর একটি বর্তমান, খারাপ মুহূর্ত তো কেবল সামান্য কিছুদিনের একটি যন্ত্রণাকর অভিজ্ঞতা। এতেই আপনার মধ্যে বেশ স্বস্তিবোধ জন্ম নেবে।
  • এমনটা নয় যে আপনি এই পরিস্থিতি থেকে বের হতে পারবেন না। মনে প্রাণে বিশ্বাস করুন যে এই নশ্বর পৃথিবীর সবকিছু সাময়িক। কোন কিছুই আজীবনের জন্য না। শুধুমাত্র উপযুক্ত সময়ের অপেক্ষা। তাই আপনাকে ভেঙ্গে পড়লে চলবে না। লড়ে যেতে হবে শেষ অব্দি। জানেন তো জীবন মানেই যুদ্ধ।
  • অন্যরা আপনার বর্তমান অবস্থা নিয়ে কি ভাবছে এটা গুরুত্বপূর্ণ নয় বরং আপনি নিজেকে ঠিক কতোটা অসহায় বা দুর্বল ভাবছেন সেটা মূল বিষয়। নিজেকে কখনো দুর্বল ভাবা চলবে না। আপনি যদি নিজেকে কখনো দুর্বল বা অসহায় না ভাবেন তাহলে অন্যর কোন নেতিবাচক ভাবনা আপনার কিচ্ছু করতে পারবে না।
  • সব সময় শুধু খারাপ সময়ের চিন্তা না করে নিজেকে একটু শান্তিতে শ্বাস নেওয়ার সুযোগ করে দিন। মনকে শান্ত ও গঠনমূলক চিন্তার জন্য সুযোগ করে দিতে কোলাহল আর মানুষের গণ্ডী থেকে খানিকটা নির্জনে নিজের সাথে কাটাতে পারেন। এতে করে আপনার অশান্ত কিছুটা শান্তও হবে আবার নিজের জন্য ভালো কিছু ভাবার সুযোগ ও পাবেন।

সবসময় মনে রাখবেন আজকের এই চরম খারাপ মুহূর্তের বিনিময়ে হয়তো আগামীতে আপনি পরম সুখকর কোন মুহূর্তের মধ্য দিয়ে যাবেন। এক কথায় বলতে গেলে বলতে হয় যে কোন অবস্থাতেই হতাশ হলে চলবে না। ভালো কিছু ঘটার সম্ভাবনার আলো মনের মধ্যে সবসময় প্রজ্বলিত রাখতে হবে।

আরো পড়ুন

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।

Leave a Reply