ফ্রীল্যান্স বা মুক্ত পেশা বিষয়ক পরামর্শ (পর্ব-০১)

NVJ Freelance discussie avond over de toekomst van freelancers.ফ্রীল্যান্সিং বর্তমানে বাংলাদেশ সহ সমগ্র বিশ্বজুড়ে  একটি জনপ্রিয় কর্মক্ষেত্র। বর্তমানে ফ্রীল্যান্সিং বাংলাদেশের গতানুগতিক যে কোন কর্মক্ষেত্রের চেয়ে অনেক বেশি নিরাপদ এবং এখানে আয়ের ক্ষেত্রটাও অনেক বেশি বিস্তৃত। ফ্রীল্যান্সিং এর  প্রধান শর্ত  হচ্ছে কাজ জানা।শুধুমাত্র স্কিল্ড বা দক্ষ হলেই আপনি এখানে ভালো করতে পারবেন।

বাংলাদেশে ফ্রীল্যান্সিং এর ব্যর্থতার অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে কাজ না জানা এবং ইংরেজিতে দুর্বলতা। প্রথমত এই দুটি বিষয় কাটিয়ে উঠতে পারলেই আপনি সফল হবেন। ফ্রীল্যান্সিং একটি মুক্ত পেশা। তবে সময় জ্ঞান এবং দায়িত্বশীলতা ফ্রীল্যান্সিং পেশার জন্য  একটি অপরিহার্য গুণ।শুধু মাত্র দক্ষ হলে এবং ইংরেজিতে মোটামুটি ভালো হলেই আপনি ফ্রীল্যান্সিং এর জন্য উপযুক্ত বলে বিবেচিত হবেন।

খুব সহজে এবং বিনা পুজিতে আপনি ফ্রীল্যান্সিং শুরু করতে পারেন। মনে রাখবেন ফ্রীল্যান্সিং পেশায় ততোক্ষণ পর্যন্ত ভালো ফল আশা করতে পারবেন না  যতক্ষণ না আপনি কাজ শিখে সেই কাজ ভালোভাবে ডেলিভারি দেয়ার সক্ষমতা এবং প্রতিভা ও দক্ষতা কাজে লাগানোর মত মানসিক প্রস্তুতি  তৈরি করতে  না পারবেন।

ফ্রীল্যান্সিং কি?

freelance ইংরেজী শব্দ। এর সংজ্ঞা হচ্ছে-‘earn one’s living’.  এর সহজ বাংলা হচ্ছে আপনি নিজে যেখানে বসবাস করবেন সেখানে বসেই কাজ করা। অন্যভাবে বলা যায় পৃথিবীর যে কোন প্রান্তে বসে মুক্ত ও স্বাধীনভাবে থার্ডপার্টি বা তৃতীয় কোন পক্ষের কাজ করে দেয়াকেই ফ্রীল্যান্সিং বলে। সহজ কথায় ফ্রীল্যান্সিং হল যে কোন স্থানে বসে অন্যের কাজ করে দেয়া।

কাদের জন্য ফ্রীল্যান্সিং?

ফ্রীল্যান্সিং একটি মুক্ত পেশা। এটি সবার জন্য উন্মুক্ত। যে কেউ যে কোন বিষয় নিয়ে ফ্রীল্যান্সিং করতে পারেন। ফ্রীল্যান্সিং করার জন্য শুধুমাত্র নির্দিষ্ট বিষয়ে আপনাকে স্কিল্ড হতে হবে। আপনি Websites, IT & Software, Mobile Phones & Computing, Writing & Content, Design, Media & Architecture, Data Entry & Admin, Engineering & Science, Product Sourcing & Manufacturing, Sales & Marketing সহ আরো অন্যান্য অনেক বিষয়েই ফ্রীল্যান্সিং করতে পারেন। এই কাজগুলো আপনি একাধিক পদ্ধতির সাহায্যে করতে পারেন সেটা হতে পারে আপনার ব্যক্তিগত কোন মাধ্যম অথবা ফ্রীল্যান্স মার্কেট প্লেস।বাংলাদেশে জনপ্রিয় ফ্রীল্যান্স মার্কেট প্লেসগুলো হচ্ছে-  Odesk.com,Freelancer.com,Elance.com,Guru.com 

ফ্রীল্যান্সিং এর সুবিধা

ফ্রীল্যান্সিং এর  অনেক সুবিধা আছে, যেমন আপনি নিজে নিজের কাজ ঠিক করতে পারছেন, নিজের পছন্দ মত কাজ বেছে নেয়ার সুযোগ, মার্কেট সম্পর্কে ধারনা পাবেন, আন্তর্জাতিক মানের কোম্পানির সাথে কাজ করার সুযোগ, নিজের পরিচয় এবং কাজকে অন্যকে জানাতে পারছেন, অবশ্যই আপনি উপার্জন করছেন, আপনার দক্ষতা যাচাই করার সুযোগ পাচ্ছেন, সর্বোপরি এই বিশ্বায়নের যুগে নিজেকে প্রস্তুত করতে পারছেন।

কি কি ফ্রীল্যান্সিং করতে পারেন

অনেক ধরনের কাজ আছে, আপনি আপনার পছন্দ এবং যোগ্যতা অনুযায়ী যেকোনো কাজ করতে পারেন। তবে আপনি যে কাজটি করবেন, তার একটি নূন্যতম মান থাকা ভাল বলে আমার মনে হয়। ওয়েব ডিজাইন, প্রোগ্রামিং, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইযেসান, লেখালেখি, ডিজাইন করা, অ্যাপলিকেশনন ডেভেলপমেন্ট করা ইত্যাদি আপনাকে ভিন্ন উচ্চতাই নিয়ে যেতে পারে। শুধু মাত্র টাকা উপার্জন করার জন্য ফ্রীল্যান্সিং করা এবং নিজের অমূল্য সময় নষ্ট করা একই কথা। আপনাকে অবশ্যই এমন কাজ বেছে নেয়া উচিত যেটা আপনার ভবিষ্যতে কাজে লাগবে। আপনি এমন কাজ করেন, যেটা দিয়ে আপনি অর্থ উপার্জন করতে পারবেন, গর্ব করতে পারবেন।

ফ্রীল্যান্সিং এর জন্য চাই সঠিক দিকনির্দেশনা

সঠিক দিকনির্দেশনা পেলে, আপনিও হতে পারেন একজন সফল ফ্রিলানসার। এক্ষেত্রে আমার পরামর্শ হল, গতানুগতিক কোন প্রতিষ্ঠানে না গিয়ে, সফল ফ্রিল্যান্সারদের সহযোগিতা নেয়া, তাদের কাছ থেকে সরাসরি হাতে কলমে শিক্ষা নেয়া, কেননা তারা কাজ করেছে , তারা জানে কোথায় ভুল হয়, কোনটা করা ভাল আর কোনটা করা ভালো নয়।

নিজেকে ফ্রীল্যান্সিংএর জন্য তৈরি করুন

প্রথমে কোন কিছু  না জেনে, ফ্রীল্যান্সিং শুরু করা ঠিক না। প্রথমে নিজেকে তৈরি করুন এবং এরপর শুরু করুন। খুব ভাল হয়, আপনি যদি কোন একটা বা একাধিক কাজের উপর প্রশিক্ষন নেন। যেমন ধরুন, ওয়েব ডিজাইন এর কথা HTML, CSS দিয়ে আপনি কাজ শুরু করতে পারেন এবং কাজ করতে করতে নিজেকে আর দক্ষ করে তুলতে পারেন। কাজ করার জন্য সময় নির্বাচন, কমপিউটার এবং অন্য সব কিছু ঠিক করে নিতে হবে এবং সর্বোপরি নিজেকে কাজ করার উপযোগী করে তুলতে হবে।

আমি আবার বলছি, এক্ষেত্রে প্রশিক্ষণ এর কোন বিকল্প নেই। আপনার নিজের কিছু কাজের নমুনা, (Portfolio), কোন নিজস্ব ব্লগ, ফোরাম আপনাকে অন্যদের থেকে এগিয়ে রাখবে, এর যদি আপনার নিজস্ব ওয়েব পেইজ থাকে তাহলে অনেক ভাল হয়।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি।  পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইস বুক, টুইটার ,গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।

Leave a Reply