মসজিদে এড়িয়ে চলতে হবে যে ৫টি মারাত্মক ভুল

grand_mosque2আমাদের মুসলমানদের জন্যে মসজিদ একটি পবিত্র স্থান এবং এর সাথে আমাদের সম্পর্ক অনেক নিবিড়। দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত আমাদের মসজিদে যাওয়া হয় এবং বিশেষ করে এই রমজান মাসে একটি বড় সময় মসজিদে থাকা হয়। কিন্তু মসজিদে নিজের অজান্তে আমরা এমন মারাত্মক কিছু ভুল করে ফেলি যার কারণে আমরা আমাদের ইবাদত গুলো নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তবে চলুন জেনে নিই মসজিদে কোন পাঁচটি ভুল করা থেকে বেঁচে থাকতে হবে।

১) মসজিদে কথা বলা যাবে নাঃ

মসজিদে কথা বলা যাবে না এটি আমরা কম বেশি সবাই জানি। তারপরেও আমরা টুকটাক কথা বলেই যাই, এর কারণ সম্ভবত কথা বলার পরিনাম সম্পর্কে জানা না থাকা।
মসজিদের ভিতরে কথা বলাকে নিষেধ করতে গিয়ে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যে,
“যদি কোন ব্যক্তি মসজিদে দুনিয়াবি কথা বলে, তবে ওই ব্যক্তির চল্লিশ বছরের আমল বরবাদ হয়ে যাবে।”
তাই মসজিদে কথা বলবেন না।

২) মসজিদে এক হাতের ভেতর অন্য হাতের আঙ্গুল ঢুকিয়ে বসবেন নাঃ

রাসুলুল্লাহ সাল্লালাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন “তোমাদের কেউ বাড়িতে ওযু করে মসজিদে এলে বাড়ি ফিরে যাওয়া পর্যন্ত সে যেন নামাজ রত থাকল।” তারপর তিনি বললেন “কেউ মসজিদে এসে যেন এরূপ করে না বসে।” তারপর তিনি তাঁর এক হাতের আঙ্গুল গুলো অন্য হাতের আঙ্গুলগুলোর ফাঁকে প্রবেশ করিয়ে দেখালেন। (ইবনে খুযাইমা ও হাকেম)

৩) তাড়াহুড়ো করে মসজিদে না ঢোকাঃ

নামাজ শুরু হয়ে গেলে রাকআত যেন ছুটে না যায়, এজন্যে অনেকে দৌড়িয়ে তাড়াহুড়ো করে মসজিদে ঢুকে। কিন্তু এভাবে তাড়াহুড়ো করাটা আসলে উচিৎ না।
রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, “যখন তোমরা সালাতে আসবে অবশ্যই ধীরস্থিরতা বজায় রাখবে। যেটুকু পাবে আদায় করবে, আর যেটুকু পাবে না তা পূর্ণ করবে।”
[বুখারী : হাদীস নং ৫৯৯]

৪) বসে থাকা মানুষ ডিঙ্গিয়ে না আসাঃ

সামনের কাতারে নামাজ পড়া সওয়াবের কাজ এটিতে কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু আপনি যদি দেরী করে আসেন আর অন্য মানুষদের গায়ের উপর দিয়ে সামনে যাওয়ার চেষ্টা করেন এটি মানুষের জন্যে যেমন বিরক্তিকর, তেমনি ইসলামেও এভাবে যাওয়াতে নিষেধ করা হয়েছে।

৫) মসজিদে হারানো বস্ত খোঁজা উচিৎ নয়ঃ

মসজিদে কিছু হারিয়ে গেলে তা খোঁজা ও তার জন্যে ঘোষণা দেয়া বৈধ নয়। রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেন,
“কাউকে যদি হারানো বস্তু মসজিদে এসে খুঁজতে দেখ বা সে সম্পর্কে ঘোষণা দিতে দেখ। তবে বলবে আল্লাহ করুন বস্তুটি তুমি যেন খুঁজে না পাও।”( তিরমিজি নাসাঈ)
এক্ষেত্রে আপনি মসজিদের ইমাম বা মুয়াজ্জিনকে বলে রাখতে পারেন, তারা আপনার হারানো জিনিসটি খুঁজে পেলে আপনাকে ফেরত দিয়ে দিবে।

আশা করি আজ থেকে মসজিদে এসে এই ভুলগুলো করা থেকে বেঁচে থাকবেন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।

Leave a Reply