ফেসবুক ব্যবহারের ক্ষেত্রে টিনেজ মেয়েদের যে ৫ টি ভুল থেকে সাবধান হওয়া উচিত

mistakesবর্তমানে অনলাইন যোগাযোগের অন্যতম সেরা মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক (facebook)। প্রায় সব বয়সী মানুষেরাই তাদের সময়ের একটি বড় অংশ ফেসবুকে ব্যয় করে থাকেন। ফেসবুকে সব থেকে বেশী পরিমাণে আসক্ত হতে দেখা যায় টিনেজারদের। আর টিনেজ মেয়েরা (teenage girls) ফেসবুকে অসচেতনভাবেই বেশ কিছু ভুলভাল (mistakes) কাজ করে নিজেদের বিপদে ফেলে। ফেসবুকে বন্ধু আর পরিচিত মানুষের পাশাপাশি অপরিচিত মানুষগুলোর সাথেও খুব সচল থাকতে গিয়ে বা নিয়মিত সংযোগ স্থাপন করতে গিয়ে এমন কিছু ভুল কাজ করে ফেলে যা পরবর্তীতে স্বাভাবিক জীবন যাপনের পথে বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়।

১) প্রাইভেসি সেটিং ব্যবহার না করা (not using privacy settings)

টিনেজ মেয়েরা ফেসবুকে খুব বেশী আসক্ত হয়ে নিজের আইডিটির প্রাইভেসি সেটিং (privacy settings) সম্পর্কে উদাসীন হয়ে পরে। প্রাইভেসি সেটিং বলতে আপনি আপনার পোষ্ট বা ছবি কাকে দেখাবেন আর কাকে দেখাবেন না ইত্যাদি বিষয়গুলোকে বোঝায়। যখন আপনি চাইবেন আপনার ছবিগুলো কেবল আপনার বন্ধুরাই দেখবে তখন অবশ্যই আপনাকে প্রাইভেসি সেটিংস ঠিক করতে হবে।

২) অচেনা লোকজনের সাথে অধিকমাত্রায় বন্ধুত্ব গড়ে তোলা ( friending people you don’t know)

যেখানে একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ কাউকে বন্ধু হিসেবে গ্রহণ করতে গেলে সেই মানুষের প্রোফাইল (profile) ও অন্যান্য তথ্য (information) ভালোভাবে দেখে তারপর বন্ধুত্ব করে, সেখানে একজন টিনেজ মেয়ে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি না দেখেই তাকে বন্ধু বানিয়ে ফেলে। সব সময় সমস্যা না হলেও প্রায় ক্ষেত্রেই এই অভ্যাসটি একজন টিনেজ মেয়ের স্বাভাবিক জীবন যাপনে জটিলতা সৃষ্টি করে।

৩) অনুপযুক্ত ফটো পোস্ট (posting inappropriate photos)

একজন টিনেজ ছেলে বা মেয়ে যে কেউই সাইবার জগৎ (cyber world) সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞান রাখেনা, আর এই কারণেই অনেক সময় দেখা যায় ফেসবুকে অনুপযুক্ত ফটো পোস্ট করে থাকে বা একাধিক ফেসবুক বন্ধুদের সাথে ট্যাগ দিয়ে ফটো আপডেট করে ফেলে। যার ফলাফল স্বরূপ একটি টিনেজ মেয়ে নানা ধরণের অস্বস্তিকর পরিবেশের সম্মুখীন হয়।

৪) ফেসবুকের আইডির পাসওয়ার্ড শেয়ার করা (sharing your account password)

টিনেজ মেয়েরা প্রায় সময় তাদের আইডির পাসওয়ার্ড (facebook password) তার বন্ধু বা পরিচিত মানুষের সাথে শেয়ার করে থাকে। এটি একটি মারাত্মক ভুল, যতটুকু সম্ভব নিজের পাসওয়ার্ড গোপন রাখায় ভালো। যাকে বিশ্বাস করে আপনি আপনার পাসওয়ার্ড শেয়ার করছেন সেই হয়তো কোনভাবে আপনার অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে আপনাকে ব্ল্যাকমেইল করতে পারে।

৫) নিজের প্রোফাইল সারা পৃথিবীর জন্য উন্মুক্ত রাখা (letting the world see your profile)

বর্তমান সময়ের টিনেজরা এতবেশি পরিমাণ লাইক পাওয়াতে বিশ্বাসী হয়ে পড়েছে যে নিজের প্রোফাইলটি প্রায় ক্ষেত্রেই উন্মুক্ত অবস্থায় (public) রেখে দেয়। নিজের ছবি বা পোস্টগুলো পাবলিকলি শেয়ার করা, ইনবক্স উন্মুক্ত রাখা ইত্যাদি ধরণের ভুলগুলো প্রায়শই টিনেজদের করতে দেখা যাই। যার পরিনামে পোস্ট বা ছবিতে আপত্তিকর মন্তব্য আবার কিছু ক্ষেত্রে ইনবক্সে অশালীন মেসেজ ও ইমেজ রিসিভ করে বিব্রত হতে হয়। টিনেজদের ফেসবুক ব্যাবহারে একটু সচেতন হওয়া প্রয়োজন। সব থেকে ভালো হয় পরিবারের বড়দের সাইবার সমস্যাগুলো সম্পর্কে টিনেজ মেয়েদের জানানো (teenage girls)। কেননা এই সময়ের একটু ভুল (mistakes) পরবর্তীতে তার পুরো জীবনটাকে প্রভাবিত করতে পারে।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।

Leave a Reply